Ashish Ullah Khan

0
887

আমার যাত্রা শুরু ২০১৫ এর সেপ্টেম্বর মাস থেকে।
তখন আমার ওজন ছিল ১৪০ কেজি। শারীরিক ভাবে বেশ কিছু সমস্যা হচ্ছিল। রাতে ঘুমাতে সমস্যা হত। বিছানায় শুলে শ্বাস নিতে কষ্ট হত।
আমি ছোটবেলা থেকেই মোটা ছিলাম।
তবে আমি ২০০৬ সালে একবার নিজ চেষ্টায় শুকিয়ে ছিলাম। সবকিছু সিদ্ধ খেয়ে আর হাটাহাটি করে। কিন্তু ধরে রাখতে পারি নাই। ৬ মাসের মধ্যেই আবার মোটা হওয়া শুরু করি। ২০১০ পর্যন্ত সেমি মোটা ছিলাম, কিন্তু ২০১০এ বিয়ে করার পর, নিজেকে আর সামাল দিতে পারি নাই।
আমি যেহেতু software company তে job করি, সারাদিনই বসে থাকতে হয়, আর এই job গুলিতে প্রচুর stress নিতে হয়।
আমি কখনওই বাইরের খাবার তেমন একটা খেতাম না। মাসে হয়ত ২ কি ১ বার। তবে আমার soft drinks এর প্রতি খুবি ঝোঁক ছিল।
খাবার খাওয়ার ব্যাপারে ছিল খুবি বাজে একটা নিয়ম,
সকালে কিছুই খেতাম না, মাঝে খেতাম সিংগারা বা সমুচা বা এক প্যাকেট Tip/Energy বিস্কুট (অফিস থেকে দিত)। দুপুরেও না খেয়ে থাকতাম। কিন্তু রাতে বাসায় ফিরে, একেবারে কব্জি ডুবিয়ে ভাত আর তরকারি, মিষ্টি ওহ। চিবাতাম না গিলে ফেলতাম।

খুব কষ্ট হত। জামা কাপড় কিছুই লাগতো না। আর এই নিয়মে খওয়ার ফলে ছুটির দিনে সকালে বা দুপুরে কিছু খেলেই ব্যস শুরু হয়ে যেত গ্যাসের খেলা, বুক জ্বলা, পেট ফেঁপে যাওয়া, শেষমেশ বাথরুমে দৌড়।

আর মানুষ তো ছিলোই, আমি যেন পাপ করছি আর উনারা উনাদের ঈমানী দায়ীত্ব পালন করতে এসেছেন।
একবার বউকে নিয়ে এক বিয়ে বাড়িতে গিয়েছিলাম, খাবারের টেবিলে একজন যা-তা বললেন। কি করবো, কষ্ট পাওয়া ছাড়া।

আমার শুরু করার আগেই আমাদের 1st baby হওয়ার পর পর আমার wife একজন dietitian কে দেখিয়ে ওরও ওজন কমিয়ে ছিল। তাই ভাবলাম যাই, দেখি কি হয়। সেই থেকে শুরু।

এখানেও কিছু ঘটনা আছে।
dietitian madam কিছু টেস্ট দিলেন, lipid profile, blood sugar test, thyroid test… সবগুলিতেই খারাপ অবস্থা। HbA1c test এ আসলো 6.9. 5.9 হল normal। blood sugar একে বারেই চিনির শরবত হয়ে আছে। madam বললেন physician দেখাতে। blood sugar নিয়ন্ত্রণ করতে হবে, আবার thyroid ও বেয়াদবি করছে। medication এ যেতে হবে।

গেলাম একজন স্বনামধন্য ডাক্তার মশাইএর কাছে। উনার thyroid problem নিয়ে কোন মাথা ব্যথা নাই। রক্তের চিনি নিয়ে আমাকে পারলে উনার পকেটেই পুড়ে ফেললেন। বললেন অমুক দোকানের অমুক লোকের কাছ থেকে ৫০০০৳ দিয়ে ইন্সুলিন পেন কিনতে, আর মুখেরও ঔষধ দিলেন।

আমার আম্মারও diabetes অনেক বছর ধরে, কিন্তু উনি কেবল মাত্র মুখেই ঔষধ খান। কিন্তু, এই ঔষধ গুলোর অনেক side effects আছে। আপনাকে ঔষধ এর উপর নির্ভরশীল করে ফেলবে। তখন আর কিছুতেই কিছু হয় না।

আমি ওই শালার(স্যার) চেম্বার থেকে বের হয়ে প্রথমে নিজের চোখ মুছলাম, মানুষিক ভাবে খুবি ভেঙে পরেছিলাম, কসাই টুট টুট এর টুট।

আমার বাবাও physician, উনার সাথে consult করলাম। উনি guide করলেন। শুধু thyroid এর জন্য half dose দিলেন।

এরপর dietitian madamer কাছ থেকে chart নিলাম। সবকিছুই নিয়ম মাফিক পালন করার চেষ্টা করলাম। আমার আম্মা আমাকে অনেক help করেছেন, নিয়ম মেনে রান্না করাটা খুবি important. সব বাজে অভ্যাস ত্যাগ করলাম।
প্রতিদিন হেটেছি, বনানী থেকে খিলগাঁও office থেকে বাসা সন্ধায় ১ ঘন্টা, আবার সকালেও বাসা থেকে বাসস্ট্যান্ড ৩০ মিনিট, ৮০ টাকার যাতায়াত খরচ ২০ টাকায় নামিয়েছি। শীত, গ্রীষ্ম, বর্ষা মানিনাই। চালিয়ে গেছি। এভাবেই প্রথম মাসেই ১০ কেজি কমিয়ে ফেললাম। dietitian madam পুরাই অবাক। পরে আবার test গুলো করলাম। HbA1c হল 4.9. fasting আসলো 5.2. lipid profile ও আলহামদুলিল্লাহ অনেকটাই improve হয়েছে।
আজ সকালেই fasting করলাম 4.8.

১৪০ থেকে ১১০ এ আসলাম ৫ মাসে। এরপর বিদেশ থেকে family member রা আসলেন। কিছু অনিয়ম হল, ওজন টা ঐখানেই আটকে আছে এখনো। গত সপ্তাহে আবার dietitian madam এর কেছে গেলাম, আবার নতুন করে সব ঠিক করে দিয়েছেন। আবার শুরু করেছি। ইনশাল্লাহ আবার জালওয়া দেখাব।

এবার আসি এই গ্রুপের কথায়।
আমি শুকানোর মাঝখানেই এই গ্রুপের খোজ পাই। নিজে থেকেই request পাঠিয়েছি।
Admin আপু আর ভাইয়ার অনেক মহৎ কাজ করছেন। গ্রুপটা অনেক informative, অনেক কিছু জানছি, আর group member সবাইকেই আমার সহযোদ্ধা মনে হয়,

সবারই এক ও অভিন্ন লক্ষ্য,

আমরা খেতেও চাই, শুকাতেও চাই, যেকোনো মূল্যেই ফিট থাকতে চাই।

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

পাঠকের মতামতঃ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here