বাঁধা অনিবার্য কিন্ত অনতিক্রম্য নয়। কিভাবে আমরা সম্ভাব্য ফাঁদ কে এড়াতে পারি এবং নিজের লক্ষ্যে পৌঁছুবো সেটার জন্য ৬ টি টিপসহ দিচ্ছি

0
1731

6foolproof transformation:

রূপান্তর প্রক্রিয়াটি এক্টু ট্রিকি । বাঁধা অনিবার্য কিন্ত অনতিক্রম্য নয়। কিভাবে আমরা সম্ভাব্য ফাঁদ কে এড়াতে পারি এবং নিজের লক্ষ্যে পৌঁছুবো সেটার জন্য ৬ টি টিপসহ দিচ্ছি :
Make micro goals
Step before you leap:
!মানুষ ছোট ছোট কোন milestone এর দিকে নিজেকে কেন্দ্রিভুত না করে দীর্ঘ কোন লক্ষ্যের (goal) দিকে এগোতে চায় যেটা সবচেয়ে বড় ১ টা ভুল। কিন্ত কেনো ? কারন একা একা পথ চলার সময় যদি কোন দীর্ঘ ছবির দিকে আমি নিজেকে কেন্দ্রভুত করি তাহলে আমি হতাশ হয়ে পরবো খুব শীঘ্রই এবং যেটা আমার সাফল্য কে পথচ্যুত করবে।
তাই নিজেকে immediate এবং পরিমেয় কোন লক্ষ্যে নিজেকে কেন্দ্রভুত করতে হবে যেমন – ধীরে ধীরে নিজেকে শক্তিশালী করতে হবে প্রতি সপ্তাহে অথবা খুব স্বল্প পরিমান ওজন কমাবেন ২ সপ্তাহ অন্তর –যেটা আমার ফোকাস কে তীব্র করবে। ( lesar sharp) ..
নিজের ক্ষুদ্র লক্ষ কে বিন্যাস করা এবং পূর্ন করা আপনাকে সাহায্য করবে দীর্ঘ লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যেতে without realising it. আপনার কাছে মনে হবে খুব সময়ের মধ্যেআপনি চুড়ান্ত লক্ষ্যে ( finish line) পৌঁছে গেছেন আরও বেশী accomplishments এর সাথে ।

Celebrate every success :

আপনি যখন সেট হয়ে যাবেন, আপনার micro কে পিষ্ট করে অতিক্রম করবেন, মনে রাখবেন এটা হচ্ছে সেলিব্রেট করার সময় ( আপনি আপনার ক্ষুদ্র সাফল্য কেও সেলিব্রেট করুন) । কখনো নিজেকে ফেইলিউর মনে করবেন না যদি আপনি আপনার সেট করা শেষ সময়ের মধ্য নির্দিষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছুতে না পারেন । মনের মধ্যে সবসময় দীর্ঘ একটি ছবি রাখবেন এবং একটি জরুরী শব্দ সব সময় মনে রাখবেন তা হল (PROGRESS)..
আপনি কি ব্যয়ামাগারে / শারীরিক প্রশিক্ষন কেন্দ্রে আপনার প্রচেস্টা বাড়িয়েছেন ?? Has your one -rep deadlift max gone up ? আপনি যদি বেটার প্লেস এ থাকেন যেখান থেকে আপনি শুরু করেছিলেন, তাহলে আপনার রূপান্তর শুরু হয়েছে।
ঠিক যেমন বেসবলকে আঘাত করা .. জীবনে ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র ফেইলিউর আসবেই কিন্ত আপনাকে ঝুলতেই হবে .. একটি ব্যর্থতা কখনোই হাল ছাড়ার কারন হতে পারেনা।
আবার এগোন এবং এগুতেই থাকুন যতক্ষন না লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেন।
মনে রাখবেন প্রতিটি ইতিবাচক পরিবর্তন আপনাকে সঠিক দিক নির্বাচন করতে সাহায্য করবে।

Banish self doubt:

সেইসব কিছু করুন , করতে থাকুন যা আপনার স্ব সন্দেহ( self doubt) কে তাড়িয়ে দেবে। যদি আপনি কঠোর পরিশ্রম করেন এবং ডেডিকেটেড থাকেন তাহলে আপনি accomplished করতে পারবেন যা আপনি করতে চাইছেন ।
যদি আপনি আপনার self doubt দিয়ে ঝাঁঝরা হতে থাকেন, এবং নেতিবাচক ভাবনা চিন্তা করেন প্রতিনিয়ত তাহলে এক কাজ করুন … কিছুদিনের জন্য যা করতে চাইছেন সেই মূল উদ্দেশ্য থেকে দুরে থাকুন । Are you letting one bad experience fuel your sense of failure?? কারো নেতিবাচক মন্তব্য কি আপনাকে ছোট করছে ??
নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনার সন্দেহ কি আসলে ঠিক না কি অমূলক.. প্রায় ই যখন আপনি চিন্তা করবেন আপনি বুঝতে পারবেন যে আপনি যেই নেতিবাচক মন্তব্য নিয়ে চিন্তা করছিলেন সেটা আসলেই অমুলক । কখনো কখনো একদমই সত্য নয় । আরও বুঝতে পারবেন আপনার এগুলো থেকে বের হয়ে আসার পাওয়ার আছে।

It’s a life style:
মনে রাখবেন এই যে স্বাস্হ্যকর অভ্যাস যা আপনি তৈরী করেছেন, বাস্তবায়ন করছেন তা খুব ধীরে ধীরে হবে। প্রথমে কিছুদিন সপ্তাহে ১টি চীটমীল এলাউ করুন, কখনোও নিজেকে দোষারোপ করবেন না এইসব ছোটখাট উপর নিচ হওয়া নিয়ে,(don’t try to sprint an entire Marathon).. আপনার ফিটনেসকে বিল্ড করুন ধীরে ধীরে কিন্ত নিশ্চিত রূপে।

Put the past behind you :
অতীত সবসময় অতীত। অতীত কে পরিবর্তন করা সম্ভব নয়। আপনি যদি গতকাল কোন ভুল করে থাকেন indulged in something you shouldn’t have or skipping the gym, এর মানে এই না যে আপনি আগামীকাল এর চেয়ে ভালো কিছু করতে পারবেন না.. আগের দিনের ব্যর্থতা কে আপনার আজকের উপর ভারী হতে দেবেন না।
মুহুর্ত গুলো উপভোগ করুন, সামনে এগিয়ে যান আপনার ১০০ ভাগ দিন। যদি আপনি অতীত আকরে থাকেন তাহলে নিজের জন্য যেটা আপনি বেছে নিয়েছেন আজ ওআগামীর জন্য তার উপর সেটা ইনফ্লুয়েন্সড হবে। যা আপনারে অক্ষম করে দেবে , বদলাতে দেবে না। প্রতিদিন ভাবুন, একটি ফ্রেশ স্টার্ট করুন যেটা আপনি করতে চাইছেন আপনার ছোট এবং বড় লক্ষ্যে পৌঁছানোর জন্য।
আপনি হয়তো কখনো কখনো সবকিছু নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন না , কিন্ত পরিস্হিতি যেটা আপনার উপর প্রভাব ফেলবে তাকে নিয়ন্ত্রন করতে পারবেন।

Always be prepared:
আপনার রূপান্তর কে ফুলপ্রুফ করার সবচেয়ে ভালো পন্থা হচ্ছে নিজেকে তৈরী করুন যতটা সম্ভব। যদি আপনি প্রতিদিন নিজেকে তৈরী করার জন্য সময় না দেন , তো আপনি যেটা পছন্দ করছেন সেটা স্বাস্হ্যসম্মত হবে না।
এমনভাবে আপনার ওয়ার্ক আউট সিডিউল তৈরী করুন .. যেমনটি আপনার চিকিৎসক এর এপয়েন্টমেন্ট নিচ্ছেন। এবং কোন প্রকার স্বাস্হ্যসম্মত খাবার না নিয়ে কখনো বাসা থেকে বের হবেন না।
আপনি জানেন না হতে পারে আপনি কোন মিটিং এ আটকা পড়ে গেলেন, ট্রাফিক জ্যাম এ আটকা পড়ে যেতে পারেন যেখানে হয়তো আপনার খাওয়ার জন্য কোন হেল্দী অপসন নেই।
তাই সব রকমের বাঁধা যাতে সহজে দুর করতে পারেন সেজন্য নিজেকে তৈরী রাখুন । 😊

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry
7

পাঠকের মতামতঃ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here