আমরা কেন মোটা হই?

0
1987

আমি ভাই এত বিশেষজ্ঞ কেউ না। আমার মতে খুব সরল স্বাভাবিক কারণ হতে পারে, আমরা যখন ডায়েট না করি মন যা চায় যখন খুশি ক্যালরির হিসাব ছাড়া খাইতেই থাকি। আর যখন ডায়েটে নামি পানি খাইতে গেলে সেটারও ক্যালরি জেনে তারপর পানি খাই। 😂

কেন ভাই? ডায়েট সম্পর্কে না জানলেও বেহুঁশ এর মত খাইতে হবে কেন? আবার ডায়েটে নামলে পানি, বাতাস এসবের ক্যালরি জেনে খেতে হবে কেন?
খুব বেশি ঢিলাঢালা আবার খুব বেশি আঁটসাঁট কোনটাই শরীরের সাথে খাপ খায় না। তাই খেতে হবে এমন অনুপাতে যেসব আপনি চাইলেই ঝড়িয়ে নিতে পারবেন। সব খাবার ক্যালরি জেনে খাওয়াই মোট কথা না। কোন খাবার কতটুকু খেলে সেটা আপনার শরীরে কি কি নেতিবাচক বা ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে এটা জানাই আসল কথা।

এই যেমন ধরেন ছোটবেলায় আমরা পড়ছি- মিষ্টিকুমড়া, মলাঢেলা মাছ, কচুশাক এসবে ভিটামিন এ আছে। দৃষ্টিশক্তি বাড়ায়। আবার পড়ছিলাম আমলকীর কথা। ভিটামিন সি আছে। স্কার্ভি রোগ প্রতিরোধ করে। লাল চালে থায়ামিন আছে। আঁশযুক্ত খাবার হার্ট ভাল রাখে। দুধ, পালংশাকে আছে ক্যালসিয়াম। হাড়ের জন্য ক্যালসিয়াম দরকারি। ডাব প্রাকৃতিক এনার্জি বুস্টার… ইত্যাদি ইত্যাদি… মনে পড়ল কিছু? পড়ছেন না এসব আপনি? জানতেন না এসব? আরো অনেক কিছু আসলে আমরা নিজেরাই জানি। কিন্তু “ডায়েট” শব্দটা কেমন জানি একটু গুরুগম্ভীর টাইপের মনে হয়! যেন কত্ত কঠিন কিছু!! নতুন ক্লাস, নতুন সিলেবাস, নতুন বই, নতুন চাপ্টার!! অথচ এসব কিছু না। সবই আমরা জানি। কিন্তু মানি না। এখানেই মূলত সমস্যা।

ডায়েটের পরিধি খুবই সরল, সাবলীল এবং সংক্ষেপিত। আমরা মানি না বলেই এটাকে জটিল মনে হয়। সামান্য পড়ালেখা, কমনসেন্স, ইচ্ছাশক্তি, ধৈর্য হলেই কিন্তু সবকিছু সহজ হয়ে যায়। আপনার যদি ওজন কমানোর ইচ্ছা থাকে এবং সে বিষয়ে বিস্তারিত জানার ইচ্ছা থাকে, আপনি বসে থাকতে পারবেন না। যেভাবেই হোক আপনি জানবেনই। সেটা এই গ্রুপ থেকেই হোক বা বিভিন্ন অনলাইন আর্টিকেল থেকেই হোক বা বিশেষজ্ঞ কোন ডায়টেশিয়ানের কাছ থেকেই হোক। প্রয়োজন শুধু আপনার ইচ্ছাশক্তির।

সবকিছু আপনার হাতে। আপনি চাইলে বার্গার চিবিয়ে ওজন কমে না বলে হায়হুতাশ করতে পারবেন। আবার হেলদি খাবার খেয়ে দুই বেলা হেটে এসে ওজন কমানোর আপডেটও দিতে পারবেন।

সিদ্ধান্ত আপনার। এই গ্রুপ অপেক্ষায় আছে আপনার বদলে যাবার গল্প পড়ার জন্য।

#ওজন_কমবেই

Like
Like Love Haha Wow Sad Angry

পাঠকের মতামতঃ